ঢাকাWednesday , 25 November 2020
  1. অপরাধ-দূনীর্তি
  2. আইন-আদালত
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. কৃষি ও অর্থনীতি
  5. খেলাধুলা
  6. চিকিৎসা
  7. জাতীয়
  8. দেশজুড়ে
  9. ধর্ম
  10. বিনোদন
  11. মতামত
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. সম্পাদকীয়

জীবননগরের নিশ্চিন্তপুরে পুকুর খননের নামে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন – JN7

NAYAN AHMMED
November 25, 2020 4:50 am
Link Copied!

আন্দুলবাড়ীয়া প্রতিনিধি:

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পিছনে অবস্থিত ভৈরব নদীর তীরে পুকুর খননের নামে শুরু হয়েছে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে নিশ্চিন্তপুরের প্রাইমারী স্কুল পাড়ার মুক্তিযোদ্ধা মৃত মফিজ উদ্দীন মফের ছেলে মিনুয়ার ওরফে আনোয়ার হোসেন, দেলোয়ার হোসেন ও সারোয়ার হোসেন ইস্কেভেটর মেশিন দ্বারা বালু উত্তলন শুরু করেছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৫ টায় সরজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গেলে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায় ১০ ফুটের অধিক খনন করা হচ্ছে যার ৩ ফুট নিচেই বালুর স্তর এ সময় অবৈধভাবে পুকুর খনন বালু উত্তলনের হোতা আনোয়ার কে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে স্থানীয় মুরুব্বি মজনু শেখ বলেন, নদীরধারে অবৈধভাবে পুকুর খনন ও বালু উত্তোলন করতে বাধা সৃষ্টি ও নিষেধ করলেও মিনুয়ার কোনো তোয়াক্কা করেননি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরো এক ব্যক্তি বলেন খননকৃত জমির মূল মালিকানা অস্পষ্ট নদীর এই জমি নিয়ে বাঙাল পাড়ার রসুলের সাথে মুক্তিযোদ্ধা মৃত মফিজ উদ্দীনের ওয়ারেশ গণের বিরোধ চলে আসছে, রাতারাতি জমি দখল ও ভাটা মালিকদের কাছে মাটি ও বালু বিক্রি করে অবৈধ অর্থ উর্পাজনই তাদের মূললক্ষ্য। এ ছাড়াও ঐ স্থানে গভীর খননের ফলে আশেপাশের ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকরাও ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করা না হলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দেওয়া হবে বলেও তিনি জানান। এ বিষয়ে আনোয়ার হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পুকুর খনন করতে কোন অনুমতি লাগেনা। অনুমতি নেওয়ার জন্য জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর দরখাস্ত করেছি কিন্তু অনুমতি দেওয়া হয়নি। তিনি আরও বলেন, আমার বাবার সম্পত্তিতে আমরা পুকুর খনন করছি কারও কোন অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন নাই।