ঢাকাTuesday , 6 October 2020
  1. অপরাধ-দূনীর্তি
  2. আইন-আদালত
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. কৃষি ও অর্থনীতি
  5. খেলাধুলা
  6. চিকিৎসা
  7. জাতীয়
  8. দেশজুড়ে
  9. ধর্ম
  10. বিনোদন
  11. মতামত
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. সম্পাদকীয়

দর্শনা থানায় উপস্থিত হয়ে আত্মসমর্পণ করলেন মাদক ব্যবসায়ী রিপন

NAYAN AHMMED
October 6, 2020 10:28 am
Link Copied!

এম.এ.আর নয়ন/সম্রাট হোসেন:


দেশকে মাদকমুক্ত করার লক্ষ্যে সারাদেশে মাদকবিরোধী সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করছে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। চুয়াডাঙ্গা জেলায় ও সেই অভিযান অব্যাহত রয়েছে। চুয়াডাঙ্গা জেলার পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলামের সার্বিক দিকনির্দেশনা ও তত্ত্বাবধানে জেলার ৫টি থানার পুলিশ সদস্যরা মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে প্রায় প্রতিদিনই আটক করছে মাদকদ্রব্যসহ চিহ্নিত সব মাদক ব্যবসায়ীদের। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছেন দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মাহাব্বুর রহমান। মাদকদ্রব্য উদ্ধারসহ একাধিক ভালো কাজ করার জন্য ইতোমধ্যে তিনি টানা চারবার জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হয়েছেন। তার নেতৃত্বে পরিচালিত মাদকবিরোধী সাঁড়াশি অভিযানে ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে দর্শনা থানাধীন এলাকাসমূহের একাধিক মাদক ব্যবসায়ী তার নিকট আত্মসমর্পণ করেছেন৷ তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার (৬ই অক্টোবর) সকালে দর্শনা থানায় স্বপরিবারে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করেন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী রিপন হোসেন৷ সে দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা থানাধীন ঈশ্বরচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত আ. মান্নানের ছেলে। এ সময় রিপন হোসেন তার বৃদ্ধ মা, স্ত্রী সন্তানসহ থানায় উপস্থিত হয়ে আর কোনদিন মাদক ব্যাবসা না করার অঙ্গীকার করে। দর্শনা থানার ওসি মাহাব্বুর রহমান, ওসি (তদন্ত) শেখ মাহাব্বুর রহমানসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
ওসি মাহাব্বুর রহমান বলেন, “চুয়াডাঙ্গা জেলার মানবিক পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলামের নির্দেশে আমরা রাতদিন ২৪ ঘণ্টা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছি দর্শনা থানাধীন এলাকাসমূহ থেকে মাদক একেবারে নির্মূল করার জন্য। মাদক ব্যাবসা বা সেবনের সাথে যারাই জড়িত থাকুক তাদেরকে বিন্দুমাত্র ছাড় দেওয়া হবেনা এবং মাদক বিষয়ে কারো কোন সুপারিশ ও গ্রহণ করা হবেনা৷ কেউ মাদকের ব্যাপারে সুপারিশ করলে ধরে নেওয়া হবে সে ও মাদক ব্যাবসার সাথে পরোক্ষভাবে জড়িত আছে। আপনারা মাদক ব্যবসায়ী সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন৷ আপনাদের নাম ও ঠিকানা সম্পূর্ণ গোপন রাখা হবে”।
উল্লেখ্য, ওসি মাহাব্বুর রহমান দর্শনা থানায় যোগদানের পর থেকে এ পর্যন্ত একাধিক চিহ্নিত মাদক ব্যাবসায়ী দর্শনা থানায় উপস্থিত হয়ে তার নিকট আত্মসমর্পণ করেছেন। আত্মসমর্পণকৃত মাদক ব্যবসায়ীরা যদি তাদের কথা রেখে আর কোনদিন এই জগতে পা না রাখে তাহলে সকলের জন্যই মঙ্গল হবে।