ঢাকাSunday , 14 February 2021
  1. অপরাধ-দূনীর্তি
  2. আইন-আদালত
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. কৃষি ও অর্থনীতি
  5. খেলাধুলা
  6. চিকিৎসা
  7. জাতীয়
  8. দেশজুড়ে
  9. ধর্ম
  10. বিনোদন
  11. মতামত
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. সম্পাদকীয়

দামুড়হুদা কর্পাসডাঙ্গার চুলের কারখানা পরিদর্শন করলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক | JN7

Rasel Munna
February 14, 2021 11:35 am
Link Copied!

জয় নিউজ সেভেন ।। চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গায় চুলের কারখানা পরির্দশন করলেন জেলা প্রশাসক মোঃ নজরুল ইসলাম সরকার ও দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলারা রহমান। গতকাল শনিবার (১৩ই ফেব্রুয়ারি) বেলা ১২টায় কার্পাসডাঙ্গা পূর্বপাড়া ও কার্পাসডাঙ্গা – আরামডাঙ্গা বটতলায় অবস্থিত চুলের কারখানা পরিদর্শন করেন ডিসি এবং ইউএনও। চুলের কারখানা ঘুরে তিনি সন্তষ্টি প্রকাশ করেন।

চুলের কারখানাকে কেন্দ্র করে কর্মসংস্থান হয়েছে হাজারো নারী-পুরুষের। বেঁচে থাকার অবলম্বন খুঁজে পেয়েছেন তারা। পাল্টে গেছে এলাকার তরুণদের ভাগ্য। নিজের দেশ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করছে এসব কারনে তিনি সন্তষ্টি প্রকাশ করেন। তবে তিনি কারখানা মালিকদের শিশু শ্রম যাতে না হয় তার দিকে নজর দিতে বলেছেন।

এবিষয়ে বাংলাদেশ হেয়ার প্রসেসিং সমবায় সমিতির সভাপতি হাসিবুজ্জামান শহিদ বিশ্বাস বলেন, কে জানত নারীদের ফেলে দেওয়া মাথার চুলই হবে হাজারো নারী-পুরুষের কর্মসংস্থান। পাল্টে দেবে ভাগ্য। সীমান্তবর্তী জেলা চুয়াডাঙ্গায় গড়ে উঠেছে শতাধিক চুলের কারখানা। মানুষের চুল এখন রপ্তানি পণ্য। চুল রপ্তানি বাবদ বৈদেশিক মুদ্রার আয় প্রতি বছরই বাড়ছে। চুল রপ্তানির ব্যাবসাকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গড়ে উঠেছে চুল সংগ্রহের বড় বাজার।

চুল ব্যবসায়ী কুতুবপুর গ্রামের মিজান বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে সংগ্রহ করা হয় চুল। বর্তমানে চিন, জাপানসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে চুলের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এগুলো দিয়ে মাথার টুপি কৃত্রিম চুল তৈরি হয়। চুয়াডাঙ্গায় কুতুবপুরে রয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় চুলের বাজার। তাছাড়া দেশে অনেক জেলায় বিভিন্ন স্থানে চুল ব্যবসা গড়ে উঠেছে। লম্বা চুলের চাহিদা বেশি। প্রথমে এগুলো শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ভালো করে শুকানো হয়। পরে আকার ও মান অনুসারে আলাদাভাবে প্যাকেজ করা হয়। এরপর বিক্রি করা হয় গ্রেড অনুসারে। তবে চুল যত লম্বা হয়, দামও তত বেশি।

প্রক্রিয়াজাত করা চুল গ্রেড অনুসারে প্রতিকেজি ৭ হাজার থেকে ১৬ হাজার টাকায় বিক্রি হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন হেয়ার প্রসেসিং সমবায় সমিতির সভাপতি হাসিবুজ্জামান শহিদ বিশ্বাস, সাধারন সম্পাদক লিয়াকত আলী মেম্বর, আওয়ামী লীগ নেতা মখলেছুর রহমান রিপন, কেমিষ্ট এন্ড ড্রাগিষ্টের সভাপতি আতিয়ার রহমান, চুল ব্যবসায়ী মোঃ মিজান, আলামিন, সাংবাদিক রতন বিশ্বাস, মেহেদী হাসান মিলন প্রমুখ।

মশিউর রহমান তুষার, দামুড়হুদা।