ঢাকাSunday , 1 November 2020
  1. অপরাধ-দূনীর্তি
  2. আইন-আদালত
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. কৃষি ও অর্থনীতি
  5. খেলাধুলা
  6. চিকিৎসা
  7. জাতীয়
  8. দেশজুড়ে
  9. ধর্ম
  10. বিনোদন
  11. মতামত
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. সম্পাদকীয়

ফেসবুকের পোস্ট দেখে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তির পাশে দাঁড়ালেন ডিসি নজরুল ইসলাম – JN7

NAYAN AHMMED
November 1, 2020 1:36 pm
Link Copied!

 

এম.এ.আর নয়ন, স্টাফ রিপোর্টার:


ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাওয়া দৃষ্টিবন্ধী জিয়াউর রহমানের পাশে দাঁড়ালেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার। তিনি জিয়াউর রহমানকে নগদ অর্থ সহায়তা দেওয়ার পাশাপাশি তাকে দুর্যোগ সহনশীল ঘর করে দেওয়ার আশ্বাস দেন।

এর আগে ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাওয়া দৃষ্টি প্রতিবন্ধী জিয়াউর রহমানের একটি ভিডিও বার্তা নিজের আইডি থেকে ফেসবুকে পোস্ট করেন হিজলগাড়ি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক আরিফ হাসান।

ভিডিও বার্তাটি দেখার পর গতকাল শনিবার (৩১শে অক্টোবর) জিয়াকে ক্ষুদ্র ব্যাবসা করার জন্য বাদামসহ অন্যান্য সামগ্রী কিনে দেন চুয়াডাঙ্গা জেলার তরুণ সমাজের আইকন শামীম হোসেন মিজি। উক্ত পোস্টে কমেন্ট করে অনেকেই জিয়াকে সহায়তা করার ইচ্ছা পোষণ করেন।

জিয়াকে বাদাম বিক্রি করার জন্য ঝুড়ি তৈরি করে দেওয়ার পাশাপাশি ব্যাবসা করার জন্য তার হাতে বিভিন্ন সামগ্রী তুলে দেন শামীম হোসেন মিজি ও সাংবাদিক আরিফ হাসান। এ ঘটনার স্থিরচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করলে তা দৃষ্টিগোচর হয় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকারের।

তাৎক্ষণিক ডিসি নজরুল ইসলাম সরকার আরিফ হাসানের সাথে যোগাযোগ করে জিয়াকে সাথে নিয়ে রবিবার (১লা নভেম্বর) বেলা ১২টার সময় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে উপস্থিত হতে বলেন। জিয়াকে সাথে নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গেলে তিনি শামীম হোসেন মিজি ও আরিফ হাসানের এ ধরনের কাজের জন্য ভূয়সী প্রশংসা করেন।

এ সময় চুয়াডাঙ্গা জেলার মানবিক জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার দৃষ্টিবন্ধী জিয়াকে স্থায়ীভাবে একটি দোকান করার জন্য নগদ ১৫ হাজার টাকা দেন এবং তাকে যতদ্রুত সম্ভব একটি দুর্যোগ সহনশীল ঘর করে দেওয়ার আশ্বাস দেন।

এ বিষয়ে জানার জন্য শামীম হোসেন মিজি এবং সাংবাদিক আরিফ হাসানের সাথে যোগাযোগ করা হলে বিষয়টি নিশ্চিত করে তারা উভয়ই জানান, এ অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়। অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে পেরে নিজেদের গর্বিত মনে করছি। আশাকরি সমাজের বিত্তবানরা ও আমাদের মতো এগিয়ে এসে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াবেন।