ঢাকাMonday , 16 November 2020
  1. অপরাধ-দূনীর্তি
  2. আইন-আদালত
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. কৃষি ও অর্থনীতি
  5. খেলাধুলা
  6. চিকিৎসা
  7. জাতীয়
  8. দেশজুড়ে
  9. ধর্ম
  10. বিনোদন
  11. মতামত
  12. রাজনীতি
  13. লাইফস্টাইল
  14. শিক্ষা
  15. সম্পাদকীয়

বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ৭০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার, এক আসামি আটক – JN7

NAYAN AHMMED
November 16, 2020 5:42 pm
Link Copied!

 

কক্সবাজার প্রতিনিধি:


বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর কক্সবাজার রিজিয়নের আওতাধীন টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) কর্তৃক পরিচালিত পৃথক দুইটি অভিযানে ১জন আসামিসহ ২ কোটি ১০ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ৭০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। রবিবার (১৫ নভেম্বর) রাতে এসব ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। 

বিজিবি জানায়, টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর অধীনস্থ খারাংখালী বিওপি’র দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় খারাংখালী বিওপি হতে আনুমানিক ১ কিঃ মিঃ দক্ষিণে নাইক্ষ্যংখালী ২নং ওয়ার্ডের স্লুইচ গেইট পাড়া এলাকা দিয়ে মিয়ানমার হতে ইয়াবার একটি বড় চালান বাংলাদেশে পাচার হতে পারে এমন সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ ব্যাটালিয়ন সদরের একটি বিশেষ টহলদল দ্রুত বর্ণিত এলাকায় গমন করে গোপনে অবস্থান গ্রহণ করে। আনুমানিক ৭টা ৩০ মিনিটের সময় টহলদল ১জন দুষ্কৃতিকারী ব্যক্তিকে বর্ণিত এলাকার জাহাঙ্গীরের মাছের প্রজেক্ট পূর্ব পাশ বরাবর নাফ নদী হতে একটি প্লাষ্টিকের বস্তা মাথায় করে উঠতে দেখে। টহলদল তাৎক্ষণিক অবৈধ অনুপ্রবেশকারীকে ধরার জন্য তাকে চ্যালেঞ্জ করে। উক্ত ব্যক্তি দূর হতে বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি অনুধাবন করতে পেরে প্লাষ্টিকের বস্তাটি ফেলে অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে নদী সাঁতরিয়ে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলে যায়। পরবর্তীতে টহলদল বর্ণিত স্থানে পৌঁছে নদীর তীর তল্লাশী করে ইয়াবা পাচারকারীর ফেলে যাওয়া ১টি প্লাষ্টিকের বস্তা উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত বস্তার ভিতর হতে ১,৮০,০০,০০০/- (এক কোটি আশি লক্ষ) টাকা মূল্যমানের ৬০,০০০ (ষাট হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়।

অপর একটি অভিযানে ১জন আসামিসহ ১০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। বিজিবি জানায়, টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর অধীনস্থ দমদমিয়া চেকপোষ্টে একটি টহলদল নিয়মিত কার্যক্রম পরিচালনা করছিল। আনুমানিক সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটের সময় জাদিমোড়া হতে টেকনাফগামী একটি সিএনজি দমদমিয়া চেকপোষ্টে আসলে তা তল্লাশীর জন্য থামানো হয়। যানবাহনটি তল্লাশীকালীন সিএনজি চালকের আচরণ সন্দেহজনক হওয়ায় তাকে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তল্লাশী করা হয়। তল্লাশীকালীন বর্ণিত সিএনজি’র পিছনের ইঞ্জিন বক্সের তেলের ট্যাংকির উপরে ফিটিং করা অবস্থায় ৩০,০০,০০০/- (ত্রিশ লক্ষ) টাকা মূল্যমানের ১০,০০০ (দশ হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়। উল্লেখ্য, ইয়াবা বহনের দায়ে ৩,৫০,০০০ (তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা মূল্যমানের উক্ত সিএনজিটি জব্দ করা হয় এবং সিএনজি চালককে আটক করা হয়। আটককৃত আসামির হলো ইলিয়াস হোসেন। সে কক্সবাজারের টেকনাফ থানাধীন জাদিমোড়া গ্রামের মৃত কাদির হোসেনের ছেলে।

উদ্ধারকৃত মালিকবিহীন ইয়াবাগুলো বর্তমানে ব্যাটালিয়ন সদরের ষ্টোরে জমা রাখা হবে এবং প্রয়োজনীয় আইনী কার্যক্রম গ্রহণ পরবর্তীতে তা উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে। এছাড়াও আটককৃত আসামীকে জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটসহ নিয়মিত মামলার মাধ্যমে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করার কার্যক্রম বর্তমানে চলমান রয়েছে।